ভয় ঙ্কর করোনা ভাইরাস থেকে যেভাবে বাঁচবেন

নতুন করোনা ভাইরাস আতঙ্ক বাড়াচ্ছে গোটা বিশ্বে। গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে এটি ছড়িয়ে পড়ে। এই ভাইরাসে এখন পর্যন্ত চীনে এক হাজার ৩০০ আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছে বেইজিং। বিশ্বের অন্যান্য কিছু দেশেও এই ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি শ*নাক্ত হয়েছে।

এমন অবস্থায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) তাদের এক বিবৃতিতে বিশ্বের সব দেশকে এ ব্যাপারে প্রস্তুতিমূলক পদক্ষেপ নেওয়ার পরাম’র্শ দিয়েছে।২২ জানুয়ারি বুধবার চীনের স্বাস্থ্য কমিশন জানিয়েছে,

নতুন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সেখানে মৃ’তের সংখ্যা বেড়ে ৪১ জনে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্তদের ঘনিষ্ঠ সংস্প’র্শে আসা আরও দুই হাজার ১৯৭ জনকে শ*নাক্ত করার কথা নিশ্চিত করে ভাইরাসটি ‘হাঁচি, কাশির মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে পারে’ বলে চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান লি বিন জানিয়েছেন।

চীনের বাইরে থাইল্যান্ড, জা’পান, দক্ষিণ কোরিয়ায় ও তাইওয়ানে আরও চার জনের আক্রান্ত হওয়ার কথা দেশগুলোর কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে। নতুন এ ভাইরাসে তাদেরও একজন নাগরিক আক্রান্ত হয়েছে বলে মঙ্গলবার ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। যে কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জারি রয়েছে সতর্কতা। ইতোমধ্যে বাংলাদেশেও জারি করা হয়েছে সতর্কতা। চীন থেকে আসা ফ্লাইটগুলোতে রাখা হচ্ছে বিশেষ নজর।

করোনা ভাইরাস কী’?বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে করোনাভাইরাস সি-ফুডের সঙ্গে যুক্ত। করোনা ভাইরাস খুব তাড়াতাড়ি ছড়িয়ে পড়ে। উট, বিড়াল এবং বাদুড় সহ অনেক প্রা*ণীর শরীরেই এই ভাইরাস প্রবেশ করতে সক্ষম। আর এই সব প্রা*ণী থেকেই ওই বিরল ভাইরাসে মানুষও সংক্রামিত হতে পারে। তবে এই ভাইরাস এক মানুষ থেকে অন্য মানুষে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

করোনা ভাইরাসের লক্ষণ?ঠান্ডা, কাশি, গলা ব্যথা, শ্বা’স নিতে অ’সুবিধা, জ্বর, এগু’লিই ওই ভাইরাসের প্রাথমিক লক্ষণ। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের এর জেরে নিউমোনিয়া হতে পারে এবং এই ভাইরাস কিডনিরও ক্ষতি করে।

করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষাপ্রথমত, এই ভাইরাসটি যেখানে ছড়াচ্ছে সেখানে যাওয়া এড়ানো উচিত। আর আপনি যদি একান্তই এমন জায়গার কাছাকাছি থাকেন তবে এই ভাইরাস থেকে বাঁচতে আপনি নিম্নলিখিত পদ্ধতিগু’লি অবলম্বন করতে পারেন …

১. আপনার হাত সাবান দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন। যদি কোনও সাবান না থাকে তবে স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।২. আপনার নাক এবং মুখ ভালভাবে ঢেকে রাখু’ন।

৩. অ’সুস্থ ব্যক্তিদের থেকে যতটা সম্ভব দূরত্ব বজায় রাখু’ন। তাঁদের ব্যবহৃত বাসন ব্যবহার করবেন না এবং তাঁদের স্প’র্শ করবেন না। এর ফলে রোগী এবং আপনি দুজনেই সুরক্ষিত থাকবেন।

৪. ঘর পরিষ্কার রাখু’ন এবং বাইরে থেকে আসা জিনিসগু’লিকেও পরিষ্কার করে ঘরে আনুন।

৫. নন-ভেজ বিশেষত সামুদ্রিক খাদ্য খাওয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখু’ন। কেননা এই ভাইরাস সি-ফুড থেকেই ছড়ায়।

করোনা ভাইরাসের চিকিৎসা

এখনও পর্যন্ত করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে কোনও ভ্যাকসিন আবিষ্কার হয়নি। বিজ্ঞানীরা এই ভাইরাসের চিকিৎসার জন্য ভ্যাকসিন তৈরির জন্যে আপ্রা*ণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

বিষ ধর সাপ থেকে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস, ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম কর্তৃক প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। প্রতিবেদন অনুযায়ী, চীন-সহ বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার মূল উৎসই হচ্ছে বিষধর চীনা ক্রেইট সাপ এবং কোবরা সাপ।

করোনা ভাইরাস বাতাসে মিশে প্রাথমিকভাবে স্তন্যপায়ী প্রা*ণী এবং পাখির শ্বা’সযন্ত্রে সংক্রমণ করে। এর ফলে প্রাথমিকভাবে জ্বর, সর্দি, শ্বা’সক’ষ্ট উপসর্গ হিসেবে দেখা দেয়। এর আগে ২০১৯ সালে চীনের হুয়ান শহরে প্রথম করোনা ভাইরাসের বিষয়টি সামনে আসে। যা খুবই দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

তবে এবারের পরিস্থিতি ভয়াবহ। আন্তর্জাতিক মহলে উদ্বেগ বাড়িয়ে চীনের বাইরে ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস। এই পরিস্থিতিতে জরুরি বৈঠকও করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’র (WHO) বিশেষ ক্ষমতাপ্রাপ্ত বিশেষজ্ঞদের একটি দল।

চীনা ভাইরাসের বিস্তারের জেরে বিশ্বে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা জারির মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে কিনা, সে বিষয়েও শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। উল্লেখ্য, গত দশকে মাত্র পাঁচবার বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা জরুরি মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিলো।

এর আগে চীনের বাইরে থাইল্যান্ড ও জা’পানে তিন জনের সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়ে ছিলো। এবার মা’র্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেছে। পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল হয়ে উঠছে। এই পরিস্থিতিতে সামনে এসেছে আশ্চর্যজনক এক তথ্য। চিনের দুই প্রজাতির সাপ থেকেই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে চিনা ভাইরাসের বিস্তার যে উদ্বেগজনক, তা স্বীকার করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাসচিব তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়েসাস জানিয়েছেন, বিষয়টি কে আম’রা খুবই গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। সমস্ত তথ্যপ্রমাণ যাচাই করে পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সমস্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। কী’ভাবে এই করোনা ভাইরাস মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ল, WHO চিনা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে তার ত’দন্ত করে দেখছে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *