এই সেই দোকান, যে দোকানে চা বিক্রি করেছেন মোদী! এটা এখন হতে যাচ্ছে…

নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার পর থেকেই কার্যত তিনি এক উদাহরণে পরিণত হয়েছেন। একজন চা-ওয়ালা থেকে তিনি আজ প্রধানমন্ত্রী হয়েছে বলে বারবারই উল্লেখ করে থাকে বিজেপি। মোদীও কখনই তাঁর শিকড়টা ভুলে যাননি। এবার তাঁর সেই চায়ের দোকান বদলে যাবে ট্যুরিস্ট স্পটে।

গুজরাতের ভাদনগর রেল স্টেশনের একটি দোকানে ছেলেবেলায় চা বিক্রি করতেন মোদী। সেই চা দোকানটিকেই এবার পর্যটকদের কাছে দর্শণীয় করার ব্যবস্থা করছে গুজরাতের রাজ্য সরকার। কারণ এখানেই ছেলেবেলার দীর্ঘ সময় কাটিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

তবে চা দোকানটির তেমন কোনও পরিবর্তন করা হবে না। ভাঙাও হবে না। দোকানটিকে কাঁচ দিয়ে ঘিরে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন গুজরাতের পর্যটনমন্ত্রী প্রহ্লাদ পটেল। দোকানের আসল এসেন্সটা রাখার দিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন তিনি।

জানা যায়, ছয় ভাইবেনের মধ্যে তৃতীয় মোদী। স্কুলজীবনে ছাত্র হিসেবে ছিলেন মাঝারি মানের৷ তবে সেই সময়ই বিতর্ক আর থিয়েটারে ছিল তাঁর প্রবল আগ্রহ।

কৈশোরে তিনি বাবাকে সাহায্য করতে রেল ক্যান্টিনে চা বিক্রি করেছেন৷ পরে কাজ করেছেন গুজরাত রোড ট্রান্সপোর্ট অথেরিটির ক্যান্টিনবয় হিসাবে৷ নির্বাচনের আগে তাঁর এই অতীত টেনে এনে কংগ্রেস শিবির অ’পপ্রচার চালানোর চেষ্টাও করেছিল। কিন্তু আদতে সেখানেই জিতে গিয়েছেন মোদী। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম কলকাতা২৪।

একজন স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে আট বছর বয়স থেকেই রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ বা আরএসএস-এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন মোদী৷ দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি পাওয়ার সময়ও তিনি প্রচারক হিসাবে আরএসএস-এর সঙ্গে ছিলেন৷

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *