ফ্রিজ ব্যবহারের কায়দা

নরমাল ফ্রিজ কিংবা ডিপ ফ্রিজ বাসায় ডেলিভারির ৩-৪ ঘণ্টা পর বৈদ্যুতিক সংযোগ দিন। রেফ্রিজারেটর/ডিপ ফ্রিজ অন করার সঙ্গে সঙ্গে কোনো খাবার রাখবেন না। প্রথমে ১-২ লিটার বোতল পানি রেখে ১০-১২ ঘণ্টা অপেক্ষা করুন।

ধাপে ধাপে খাবার রাখুন। সব খাবার একবারে রাখবেন না। এতে ফ্রিজ সঠিক তাপমাত্রায় আসতে পারে না। গরম অবস্থায় কোনো খাবার রেফ্রিজারেটরে রাখলে খাবার এবং রেফ্রিজারেটর নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে।কোরবানির মাংস কাটা শেষ করে সঙ্গে সঙ্গে ফ্রিজে রাখলে মাংস নষ্ট হয়ে যাবে। এ ক্ষেত্রে কাটা মাংস বাইরে কমপক্ষে ২-৩ ঘণ্টা রাখার পর ধাপে ধাপে ফ্রিজে রাখতে হবে।

ফ্রিজের দরজা যত কম খোলা যায়, তত বেশি সময় ধরে খাবার ভালো থাকবে এবং ফ্রিজও টেকসই হবে। ভোল্টেজের তারতম্যের জন্য ক্ষতি এড়াতে ফ্রিজের ক্যাপাসিটি অনুযায়ী প্রয়োজন হলে ভি-গার্ড ভোল্টেজ স্ট্যাবিলাইজার ব্যবহার করুন। ডেলিভারির সময় মানি রিসিটটি যত্ন করে রাখুন। পরবর্তী সময়ে সার্ভিস বা ওয়ারেন্টি কাজে এটি দরকার হবে।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *