করো’না আ’ত’ঙ্কে ফাঁ’কা রাজধানী, বাড়ি ফেরার ঢল

এ সপ্তাহের শুরুতে বাংলাদেশে তিনজন করো’নাভাই রাস আ’ ক্রান্ত রো গীর সন্ধান মেলে। তাদের দুইজন ইতালি থেকে সম্প্রতি ফিরেছেন ও একজন তাদের আত্মীয়। দেশের প্রথম করো’নাভাই রাস রো গীর সন্ধান মেলার পরই আ তঙ্কিত হয়ে উঠে দেশবাসী।

এরপর থেকেই শুরু হয় ঢাকা ছাড়ার হিড়িক। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রওনা দিয়েছে অসংখ্য মানুষ। বিভিন্ন পরিবহনে দেখা গেছে বাড়ি ফিরতে যাওয়া মানুষের ভিড়।

একই অবস্থা শুক্রবারও। এদিন সকালেই গাবতলী, মহাখালী ও সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল, কমলাপুর রেলস্টেশন এবং সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে অ’ত্যধিক যাত্রীদের চা’প ছিল।

রাজধানী ঢাকাসহ দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের ২১ জে’লার মানুষ ও যানবাহন পারাপারের অন্যতম নৌরুট হচ্ছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া। বর্তমানে পাটুরিয়া সংযোগ মোড় ও ঘাট এলাকায় দুটি ট্রাক টার্মিনালে নৌপথ পারের অ’পেক্ষায় রয়েছে প্রায় ৪ শতাধিক বাস ও ট্রাক।

ভীড় বেড়েছে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি রুটেও। সকাল থেকেই এখানে উপচে পড়া ভীড়। ঘাটে কর্ম’রতরা বলছেন, সাধারণত ঈদের ছুট িছাড়া যাত্রীদের এমন চা’প খুব এটা লক্ষ্য করা যায় না।

এদিকে, বদলে গেছে রাজধানী ঢাকার চিত্র। মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয়ে থাকা নগরী এখন ফাঁকা। নেই যানজট। রাজধানীর অধিকাংশ সড়কেই একই অবস্থা।

কমে এসেছে নগরীর গণপরিবহন, রিকশা সিএনজি অটোরিকশাও। তবে আধিক্য রয়েছে প্রাইভেট কার, মাইক্রোবাসের। জ্যাম কম থাকায় নগরবাসীর ব্যক্তিগত যান চলাচল করছে নির্বিঘ্নে।

ঢাকার ব্যস্ততম বাণিজ্যিক এলাকা মতিঝিলের চিত্র ছিল গতানুগতিক। তবে রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা কম বলে যানজট ছিল না।এদিকে, রাজধানীর কমলাপুর এবং বিমানবন্দর রেলস্টেশন ঘরমুখো মানুষের ব্যাপক ভিড় দেখা গেছে। জীবনের ঝুঁ কি নিয়ে অনেকেই উঠেছেন ট্রেনের ছাদে।

বুধবার (১৮ মার্চ) থেকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিসভা। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত ব লবৎ থাকবে।

সোমবার (১৬ মার্চ) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারি স্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

করো’না ভাই রাসের কা রণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি দুপুর ১টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে গণমাধ্যমকে ব্রিফ করবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, আজ সোমবার বিকালে এ সং ক্রান্ত আদেশ জারি হবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব আকরাম-আল-হোসেন বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমরাও বন্ধ ঘোষণা করব। বিকালে বৈঠক করে বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে।

দেশ করোনা সং ক্রমিত হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন মহলে থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের দাবি উঠেছিল। তবে শুরুতে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছিল স্কুল-কলেজ বন্ধ হওয়ার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। তবে প্রয়োজন হলে বন্ধ ঘোষণা করা হবে।

প্রসঙ্গত দেশে করো’নাভাই রাসে আ ক্রান্ত নতুন রো গী দু’জনই পুরুষ। একজনের ডায়াবেটিস ও ব্লা ডপ্রেশারের সমস্যা রয়েছে।

হাস পাতালে চিকিৎ সাধীন এ দু’জনই বর্তমানে ভালো আছেন। শনিবার থেকে এ পর্যন্ত ২৭৫ জনকে বিমানবন্দর থেকে আশকোনা হজ ক্যাম্পে ও গাজীপুরের পুবাইলে কোয়ারেন্টিনে রেখে পরীক্ষা করা হচ্ছে। যাদের শ রীরে লক্ষণ নেই তাদের ছেড়ে দেয়া হচ্ছে।

সারা দেশে ২ হাজার ৪৭১ জন হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। এরমধ্যে ঢাকা বিভাগের ১ হাজার ৪৮, চট্টগ্রাম বিভাগের ১ হাজার ১৯৭, রাজশাহীতে ১৫, খুলনায় ৪৯, বরিশালে ২৯, ময়মনসিংহে ১৯, রংপুরে ২৫ এবং সিলেটে ৯ জন। যদিও আইইডিসিআরের হিসাব মতে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ২ হাজার ৩১৪ জন।

এছাড়া শনিবার থেকে এ পর্যন্ত ৪১৭ জনকে বিমানবন্দর থেকে আশকোনা হজ ক্যাম্পে এবং গাজীপুরের পুবাইলে রেখে শরীরে করো’নাভাই রাসের লক্ষণ আছে কিনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে শনিবার ইতালি থেকে আসা ১৪২ জনের শ রীরে কোনো লক্ষণ না থাকায় তাদের নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। বাকিদেরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে নিজ বাড়িতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলমান।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *